সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

সদ্যপ্রাপ্ত শিরোনামঃ
জীবনের শেষ মূহুর্তে প্রিয় রাসূল (সা:) যে কথাটি বলেছিলেন… গাঁজা সেবনের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলো ছাত্রলীগ…. ফেনীতে ব্যাটারী চালিত রিক্সা চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারিকরলেন জেলা ট্রাফিক ইনর্চাজ… ফেনী মডেল থানায় বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় সাঈদ এস্কান্দারের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত… মহেশপুর ভৈরবা এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় স্কুলছাত্র নিহত… মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পরিবেশ সৃষ্টিতে এক অনন্য দৃষ্টান্ত “তুমিও পারবে, আমরা আছি তোমার সাথে” বিদ্যালয়ভিত্তিক স্বেচ্ছাস্ববী সংগঠন।… কুমড়াবাড়িয়া ধোপাবিলা গ্রামের হাতুড়ে ডাক্তার মোতালেবের কুকৃত্তি ফাঁস !… ঝিনাইদহে দুর্ঘটনা রোধে পরিবহন চালক ও হেলপারদের প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত…. ঝিনাইদহের হাট-বাজার, শহর-বন্দর-গ্রামে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে ভারতীয় নিম্নমানের চা-পাতি
লিমা হত্যার ভয়ঙ্কর বর্ণনা দিলো পরকীয়া প্রেমিক…

লিমা হত্যার ভয়ঙ্কর বর্ণনা দিলো পরকীয়া প্রেমিক…

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে পরকীয়া প্রেমের সূত্র ধরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রাতভর রেখে ভোরে লিমা আক্তার লিমুকে (১৮) শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। দুই দিন দোকানের র‌্যাকের ভেতর লাশ লুকিয়ে রাখার পর তিন দিনের মাথায় রাতে কাপড়ের বস্তার ভেতর মোড়িয়ে ছাদ থেকে লাশ নিচে ফেলে দেয়া হয়। আর প্রেমিক স্বাভাবিকভাবে বসে ছিলেন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। লাশ উদ্ধারের জন্য পুলিশকে খবর দেয়া হলে প্রেমিক খোকন পালিয়ে যায়।

সোমবার দুপুরে আদালতে এভাবেই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় খোকন।

হত্যাকারী খোকন উপজেলার বাড়ৈখালী বাজারের চাঁন সুপার মার্কেটের দর্জিঘর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক। আর নিহত লিমা আক্তার লিমু (১৮) বাড়ৈখালী গ্রামের আ. মতিনের মেয়ে।

পুলিশ জানায়, ৬ মাস আগে লিমুর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে খোকনের সঙ্গে। গত ২৮ আগস্ট বিকালে লিমু খোকনের দোকানে যায়। লিমু সেখানে গিয়ে ৩০ হাজার টাকা দাবি করে। এ সময় খোকন প্রলোভন দেখিয়ে লিমুকে দোকানের ভেতর রেখে রাত্রিযাপন করে। খোকন ভোররাতে লিমুকে চলে যেতে বললে সে টাকা দাবি করে। টাকা না পেলে লিমু ঘটনা ফাঁস করে দেবে বলে জানায়।

কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে খোকন গলায় চাপ দিয়ে শ্বাসরোধ করে লিমুকে হত্যা করে। হত্যার পর লাশ কাপড়ের র‌্যাকের বাক্সে লুকিয়ে রেখে ঠান্ডা মাথায় দোকানদারি করে। পরদিনও সারা দিন দোকানদারি করে রাত ১১টার দিকে লিমুর লাশ বস্তায় মোড়িয়ে মার্কেটের ছাদ থেকে নিচে ফেলে দেয়। ৩১ আগস্ট দুপুরে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে খোকন পালিয়ে যায়। পুলিশ ওই দিনই দোকানের র‌্যাকে রক্তের দাগ ও লাশ পঁচা গন্ধের সূত্র ধরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য খোকনের দুই ভাই ও দুই কর্মচারীকে আটক করে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শ্রীনগর সার্কেল) কাজী মাকসুদা লিমার নেতৃত্বে অভিযানে নামে পুলিশ। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে রোববার দিন দুই সন্তানের জনক খোকনকে টঙ্গী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাসুদুর রহমান জানান, খোকন আদালতে স্বীকরোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। নিখোঁজের ৪ দিনের মাথায় লাশ উদ্ধারের পর লিমুর বাবা বাদী হয়ে খোকনকে আসামি করে শ্রীনগর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি

অাপনার মতামত লিখুন

দয়া করে সংবাদটি সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।Email:dainiksomoy24@gmail.com


   
© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়.কম