সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

সদ্যপ্রাপ্ত শিরোনামঃ
জীবনের শেষ মূহুর্তে প্রিয় রাসূল (সা:) যে কথাটি বলেছিলেন… গাঁজা সেবনের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলো ছাত্রলীগ…. ফেনীতে ব্যাটারী চালিত রিক্সা চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারিকরলেন জেলা ট্রাফিক ইনর্চাজ… ফেনী মডেল থানায় বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় সাঈদ এস্কান্দারের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত… মহেশপুর ভৈরবা এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় স্কুলছাত্র নিহত… মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পরিবেশ সৃষ্টিতে এক অনন্য দৃষ্টান্ত “তুমিও পারবে, আমরা আছি তোমার সাথে” বিদ্যালয়ভিত্তিক স্বেচ্ছাস্ববী সংগঠন।… কুমড়াবাড়িয়া ধোপাবিলা গ্রামের হাতুড়ে ডাক্তার মোতালেবের কুকৃত্তি ফাঁস !… ঝিনাইদহে দুর্ঘটনা রোধে পরিবহন চালক ও হেলপারদের প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত…. ঝিনাইদহের হাট-বাজার, শহর-বন্দর-গ্রামে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে ভারতীয় নিম্নমানের চা-পাতি
গ্রামের মেয়ে বিচারকের আসনে….

গ্রামের মেয়ে বিচারকের আসনে….

 

গ্রামের সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে নৌশিন আঞ্জুম। তিনিই এখন জেলা আদালতের বিচারকের আসনে।
উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর ব্লকের পাঞ্জিপাড়া গ্রামের মেয়ে নৌশিন পশ্চিমবঙ্গ জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায় পাস করেন। তাঁর এই সাফল্য খুশি বাবা মা। বাবা নুরুল ইসলাম পেশায় স্কুল শিক্ষক। মা গহর আঞ্জুম সাধারণ গৃহবধূ। পাঞ্জিপাড়া বাড়ি হলে বর্তমানে কর্মসুত্রে তাঁরা ইসলামপুর শহরের মেলামাঠ থাকছেন। বাবা দাড়িভিট হাইস্কুলের শিক্ষকতা করেন। মফস্‌সল এলাকা থেকে কোনও কোচিং ছাড়াই বিচারকের পরীক্ষায় সাফল্য পেয়ে সবার নজর কেড়েছেন।
জেলার সব থেকে পিছিয়ে পড়া এলাকা গোয়ালপোখর ব্লক। নুরুল হুদা জানান, মেয়ে ২০১০ সালে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন নিয়ে পাশ করার পরে ২০১৩ সালে হায়দরাবাদ থেকে এলএলএম পাশ করে ২০১৫ সালে জুডিশিয়াল পরীক্ষায় বসেন নৌশিন। ২০১৭ সালে প্রথম ট্রেনিং পোস্টিং হয় রায়গঞ্জ জেলা আদালতে। বাবা বললেন, ‘‘মেয়ের ইচ্ছায় আইন নিয়ে পড়াশোনার জন্য উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি করি। আর দশটা গতানুগতিক পেশাকে না বেছে তার স্বপ্ন ছিলই একজন বিচারক হওয়ার। আর এতে তাঁর সাফল্য।’’ নৌশিনের সাফল্য খুশি ইসলামপুর গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষিকা জগদ্ধাত্রী সরকার। তিনি বলেন, ‘‘নৌশিন জেলার মেয়েদের গর্ব।’’

অাপনার মতামত লিখুন

দয়া করে সংবাদটি সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।Email:dainiksomoy24@gmail.com


   
© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়.কম