সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

সদ্যপ্রাপ্ত শিরোনামঃ
জীবনের শেষ মূহুর্তে প্রিয় রাসূল (সা:) যে কথাটি বলেছিলেন… গাঁজা সেবনের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলো ছাত্রলীগ…. ফেনীতে ব্যাটারী চালিত রিক্সা চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারিকরলেন জেলা ট্রাফিক ইনর্চাজ… ফেনী মডেল থানায় বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পুলিশ সুপার… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় সাঈদ এস্কান্দারের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত… মহেশপুর ভৈরবা এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় স্কুলছাত্র নিহত… মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পরিবেশ সৃষ্টিতে এক অনন্য দৃষ্টান্ত “তুমিও পারবে, আমরা আছি তোমার সাথে” বিদ্যালয়ভিত্তিক স্বেচ্ছাস্ববী সংগঠন।… কুমড়াবাড়িয়া ধোপাবিলা গ্রামের হাতুড়ে ডাক্তার মোতালেবের কুকৃত্তি ফাঁস !… ঝিনাইদহে দুর্ঘটনা রোধে পরিবহন চালক ও হেলপারদের প্রশিক্ষন কর্মশালা অনুষ্ঠিত…. ঝিনাইদহের হাট-বাজার, শহর-বন্দর-গ্রামে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে ভারতীয় নিম্নমানের চা-পাতি
বেড়াতে নেয়ার কথা বলে নিজ মেয়েকে যৌনপল্লীতে বিক্রি, নরপশু বাবার কারাদন্ড….

বেড়াতে নেয়ার কথা বলে নিজ মেয়েকে যৌনপল্লীতে বিক্রি, নরপশু বাবার কারাদন্ড….

সময়ের কণ্ঠস্বর, যশোর :: নিজ মেয়েকে পাচার করে যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগে এক নরপিশাচ বাবার সাত বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। সোমবার দুপুরে যশোরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক অমিত কুমার দে এ আদেশ দেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামির নাম শরিফুল ইসলাম (৪৩)। সে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার মো. বাবুর ছেলে। শরিফুল বর্তমানে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক আছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বাঘারপাড়া উপজেলার ফুল মিয়ার মেয়ে সুফিয়া বেগমের সঙ্গে আসামি শরিফুলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। মেয়ের জন্মের এক বছর পর তাদের মধ্যে তালাক হয়ে যায়। এরপর থেকে সুফিয়া খাতুন মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে যান। এর মধ্যে ১৫ বছর পেরিয়ে যায়। গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি শরিফুল মেয়েকে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে নিজের কাছে নিয়ে যান। পরে আর ফেরত দেননি। অনেক খোঁজখবর করে মেয়ে ও শরিফুলকে কোথাও খুঁজে পাননি সুফিয়া।

আট মাস পর বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির (বিএনডব্লিউএলএ) সহযোগিতায় ওই মেয়েকে ফরিদপুরের একটি যৌনপল্লী থেকে উদ্ধার করা হয়। শরিফুল নিজের মেয়েকে গত বছরের ২২ মার্চ ওই যৌনপল্লীতে নিয়ে বিক্রি করে দেন। এ বিষয়ে শরিফুলকে আসামি করে মেয়ের নানা ফুল মিয়া বাঘারপাড়া থানায় মানব পাচার আইনে একটি মামলা করেন।

জানতে চাইলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) ইদ্রিস আলী বলেন, বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে নানাবাড়ি থেকে মেয়েকে নিয়ে যান শরিফুল। পরে তাকে ফরিদপুরের একটি যৌনপল্লীতে বিক্রি করে দেন। এরপর বিএনডব্লিউএলএ’র সহযোগিতায় পুলিশ ওই মেয়েটিকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ঘটনায় বাঘারপাড়া থানায় একটি মামলা হয়। ওই মামলায় শরিফুলকে আদালত তাকে উপরেল্লিখিত সাজার আদেশ দেন। শরিফুল কারাগারে আটক। মেয়েটি বিএনডাব্লিউএলএ’র আশ্রয়ে রয়েছে।

বিএনডব্লিউএলএর যশোরের সমন্বয়কারী নাসিমা খাতুন বলেন, অসুস্থ অবস্থায় মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়। এরপর আমাদের শেল্টার হোমে রেখে তাকে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করা হয়েছে। দেড় বছর ধরে মেয়েটি আমাদের আশ্রয়ে রয়েছে।

অাপনার মতামত লিখুন

দয়া করে সংবাদটি সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।Email:dainiksomoy24@gmail.com


   
© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়.কম