মায়ের শ্লীলতাহানি, বন্ধুর মাথা কেটে থানায় হাজির ছেলে…

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- মায়ের শ্লীলতাহানির অভিযোগে বন্ধুর মাথা কেটে থানায় হাজির হয়েছেন পশুপতি নামের এক ব্যক্তি। ভারতের কর্নাটকের মান্ড জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে।

রাজ্য পুলিশ বলছে, পশুপতি জানতে পারেন, তার মায়ের শ্লীলতাহানি করেছেন গিরিশ নামে তারই এক বন্ধু। এর পর গিরিশের সঙ্গে তুমুল বাক-বিতণ্ডা শুরু হয়। ক্রোধের বশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গিরিশের মাথা ছিন্ন করেন তিনি।

সেই মাথা নিয়ে থানায় হাজির হন পশুপতি। তা দেখে রীতিমতো স্তম্ভিত পুলিশ কর্মকর্তারা। পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন তিনি।

কর্নাটকে এই নিয়ে তিন বার এ ধরনের ঘটনা ঘটল। গত মাসে শ্রীনিবাসপুরে আজিজ খান নামের এক ব্যক্তি এক মহিলার মাথা নিয়ে থানায় হাজির হন। যা দেখে রীতিমতো চমকে যান অনেকেই। ওই মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল আজিজের।

চিকম্যাঙ্গালুরু পুলিশ স্টেশনেও এক মহিলার কাটা মাথা নিয়ে হাজির হয়েছিলেন সতীশ নামের এক ব্যক্তি। ওই মহিলার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক জানতে পেরে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন সতীশ।

এমনকি স্ত্রীর মাথা বস্তায় পুরে ২০ কিলোমিটার বাইকে চড়ে থানায় উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। পুলিশের কাছে সতীশ জানান, সরি স্যার, স্ত্রীর প্রেমিকাকেও মারতে পারলাম না! জিনিউজ।