পিরোজপুরে ৩ মাথা আকৃতির অদ্ভুত শিশুর জন্ম!…

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলায় তিন মাথাবিশিষ্ট অদ্ভুত আকৃতি এক ছেলে শিশুর জন্ম হয়েছে। বুধবার ভোরে ভান্ডারিয়া উপজেলার ফাতেমা ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে অদ্ভুত ওই শিশুটির জন্ম হয়।

শিশুটির মায়ের নাম রেহেনা আক্তার। তিনি ঝালকাঠি জেলার কাঁঠালিয়া উপজেলার আমুয়া গ্রামের মামুন হাওলাদারের স্ত্রী।

শিশুটির দাদা শাহজাহান হাওলাদার জানান, বুধবার ভোররাতে প্রসব বেদনা নিয়ে ভান্ডারিয়া উপজেলার ফাতেমা ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে ভর্তি হন রেহেনা আক্তার। পরে সকাল সাড়ে ৬টায় দিকে তিনি একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের পরে দেখা যায় শিশুটির তিন মাথা আকৃতির, বিশেষ অঙ্গ নেই, চোখ দুটো পাশাপাশি কপালের মধ্যে, হাত দুটো বাকা। তার ওজন হয় তিন কেজি ৭০০ গ্রাম। জন্মের পর থেকে শিশুটি অনেকটা অসুস্থ রয়েছে।

শাহজাহান হাওলাদার আরো জানান, চার বছর আগে রেহেনা আক্তারের সঙ্গে বিয়ে হয় মামুন হাওলাদারের। এটি তাদের প্রথম সন্তান। তিনি আরো বলেন, শিশুটির বাবা রাজধানীতে একটি রডের দোকানের কর্মচারী। তার পক্ষে এই অদ্ভুত শিশুর চিকিৎসার ব্যয় বহন ও তার জীবন বাঁচানো অসম্ভব।

এদিকে এই শিশু জন্মের খবর ছড়িয়ে পড়লে ফাতেমা ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোমে শিশুটিকে এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমায় উৎসুক জনতা।

ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ এইচ এম জহিরুল ইসলাম জানান, অদ্ভুত আকৃতির জন্ম নেয়া এ শিশুটি হাইড্রসেফালাস রোগে আক্রান্ত। উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়েছে।