Take a fresh look at your lifestyle.

সেই ডিসির চাকরি বাঁচাতে সাধনাকে বিয়ে

স্বদেশ বাংলা ডেস্ক:

226

ক’দিন আগেই সহকারী সানজিদা ইয়াসমিন সাধনার আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল হয়েছে জামালপুরের সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরের সঙ্গে। আহমেদন কবীর তার অফিস এ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন। সাধনাকে তিনি বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলেও গুঞ্জন উঠেছে চাকরি বাঁচানোর জন্য।

সাধনার পরিবার সাধনাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত কিংবা প্রস্তাব দেয়া নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যেসব সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে সেগুলোকে ‘ভুয়া ও ভিত্তিহীন’ বলে দাবি করছে। গতকাল মঙ্গলবার একাধিক সংবাদমাধ্যমে আহমেদ কবীর ও সাধনার বিয়ে সংক্রান্ত খবর ছড়িয়ে পড়ে।

তার কয়েকদিন আগে থেকেই হঠাৎ গা ঢাকা দেন সাধনা। এ বিষয়ে জানতে সাধনার মুঠোফোনে বহুবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এরপর তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ডিসির সঙ্গে বিয়ের গুঞ্জন নিয়ে সাধনার মা বলেন, ‘এ ধরনের গুঞ্জনে আমার মেয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে।

ও এখন মিডিয়ার সামনে আসতে চাচ্ছে না। আপনারা ওকে এখন ডিস্টার্ব করবেন না, প্লিজ।’ আহমেদ কবীরের সঙ্গে মেয়ের বিয়ের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ডিসি কিংবা তার পরিবারের পক্ষ থেকে কখনোই আমার মেয়ের জন্য এ ধরনের কোনও প্রস্তাব দেয়া হয়নি। দেয়া হলেও আমরা প্রত্যাখ্যান করতাম।

ডিসির সঙ্গে আমার মেয়ের বিয়ে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। কারণ ডিসির নিজের একটা পরিবার আছে। আর আমার মেয়েরও সন্তান আছে।’ এদিকে ডিসির সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল হওয়া নিয়ে সাধনা দুদিন আগেই গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমাকে কেউ কথা শিখিয়ে দেয়নি।

স্যারের (আহমেদ কবীর) কোনও দোষ নেই। আমার সন্তানকে বাঁচতে দিন। আমার সন্তানের জন্য আমি বাঁচতে চাই। যারা এ ধরনের একটি মিথ্যে বানোয়াট ভিডিও প্রকাশ করেছে আমি তাদের বিচার চাই।’

‘খন্দকার সোহেল আহমেদ’ নামের একটি আইডি থেকে ১৫ আগস্ট বিকেলে জামালপুরের ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে সাধনার আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশ হলে তা মুহূর্তেই ভাইরাল হয়। অবশেষে ডিসি আহমেদ কবীরকে ওএসডি করা হয়েছে এ ঘটনার পর থেকে।

এই বিভাগের আরও সংবাদ